মোটরসাইকেল খবর

Hop Oxo Electric Motorcycle এক চার্জে যাবে ১৫০ কিমি


রাজস্থানের সংস্থা হপ ইলেকট্রিক মোবিলিটি (Hop Electric Mobility) তাদের প্রথম বৈদ্যুতিক মোটরসাইকেল, হপ অক্সো (Hop Oxo)-র উপর থেকে পর্দা সরাল। সাম্প্রতিক কালে অনেকবার খবরের শিরোনামে উঠে এসেছিল এই ইলেকট্রিক মোটরবাইকটি। আনুষ্ঠানিক ভাবে লঞ্চ করার আগেই, Hop Oxo মডেলটির ছবি প্রকাশ করল তারা। একইসঙ্গে সংস্থাটি বেশ কিছু তথ্য ভাগ করে নিয়েছে।

Hop Oxo ইলেকট্রিক মোটরসাইকেলের লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি ফুল চার্জ করলে ১৫০ কিলোমিটারের কাছাকাছি নিশ্চিন্তে চালানো যাবে বলে দাবি করা হয়েছে। তবে বাস্তবে যে তারতম্য ঘটবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। আরও বলা হয়েছে, বাইকটি ঘন্টা প্রতি ১০০ কিলোমিটার গতি তুলতে সক্ষম হবে।

Hop Oxo নিয়ে যে এখনও পরীক্ষ-নিরীক্ষা চলছে, সে কথা সংস্থার তরফে স্পষ্ট করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গে হপের দাবি, ব্যাটারিচালিত মোটরসাইকেলের প্রোটোটাইপ মডেলটি যোধপুর, জয়পুর, পাটনা, হায়দরাবাদ, লুধিয়ানা, কলকাতা মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত ৩০,০০০ কিলোমিটার পথ সফর করেছে। সংস্থার গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের লক্ষ্য, ওই সফর থেকে প্রাপ্ত ডেটা বিশ্লেষণ করে সমস্ত খামতিগুলি ঢেকে একটি সম্পূর্ণ পণ্য তৈরি করে তারপরেই বাজারে আনা।

হপ ইলেকট্রিক মোবিলিটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও কেতন মেহতা (Ketan Mehta) বলেছেন, স্টুডিও বা ল্যাবে কোনও পণ্য ইঞ্জিনিয়ার এবং ডিজাইনারদের হাতে তৈরি হলেও, ডিলার এবং ভোক্তাদের অর্ন্তদৃষ্টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যে কারণে আমরা ঘোষণা করতে রোমাঞ্চিত বোধ করছি যে, আমরাই ভারতের প্রথম ইভি সংস্থা, যারা কনজিউমার ট্রায়াল শুরু করছে৷ #OXONSNEAKPEEK প্রোগ্রামের মাধ্যমে আমরা ডিলার এবং ভোক্তাদের কাছ থেকে হপ অক্সো ই-বাইক সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া ও পরামর্শ পাচ্ছি।”

উল্লেখ্য, হপ বর্তমানে Leo ও LYF মডেলের দু’টি ই-স্কুটার বিক্রি করে। জয়পুরে সংস্থার একটি কারখানা রয়েছে। যেখান খুব শীঘ্রই LYF এর আপডেটেড মডেল এবং আপকামিং অক্সোর উৎপাদন চালু হবে। হপ মেগাপ্লেক্স নামক ওই ম্যানুফ্যাকচারিং ফেসিলিটির উৎপাদন ক্ষমতা দৈনিক ১০০ ইউনিট। আবার আগামী তিন বছরের মধ্যে ভারতের বাজারে দশটি নতুন মডেল নিয়ে আসারও পরিকল্পনা করছে হপ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button